ইসলাম নারীকে অনেক অধিকার দিয়েছে, কিন্তু আপনি মুসলিম হিসেবে কতটুকু দিচ্ছেন ?

অনেক ক্ষেত্রেই ইসলাম এর থিউরি নিয়ে আলোচনা যতটা হয়, এর প্রয়োগের বেলায় গিয়ে মুসলমানদের বাস্তব উদাহরণ এর সাথে মিল কমই থাকে।

নারী বিষয়ক বিতর্কগুলোতে এই ব্যাপারটা অনেক বেশি লক্ষনীয়।দেখা যায় ইসলামের থিউরির সাথে মুসলমান সমাজে নারীর অবস্থার মিল পাওয়া যায় কম। আলেম উলামাগন ইসলামে নারীর মর্যাদা বিষয়ক তাফসীর কম করেননি বহুকাল ধরে। কিন্তু সেইসব থিউরিতেই বেশি শোভা বর্ধন করেছে। অনেক গর্ব করে হুজুরগন বক্তব্য দিয়েছেন ইসলাম নারীরে কত মর্যাদা দিয়েছে সেটার বর্নণা দিয়ে দিয়ে। ইসলাম তো দিয়েছে ঠিকই, রাসুল্ (সাঃ) তার আদর্শে রেখে গেছেন নারীদের মর্যাদা, অধিকার, সামাজিক অবস্থানের উদাহরণ। এরপর ওমর (রাঃ) ও রেখে গেছেন জ্বলন্ত উদাহরণ, তার সামনে দাঁড়িয়ে মুসলিম নারী তার ভুল ধরেছে, এবং ওমর (রাঃ) তা অকপটে মেনে নিয়েছেন বীনয়ের সাথে। সেইরকম পাবলিক এক্সেস আপনি কতটুকু দিয়েছেন নারীকে ?

সব্বাই শুধু বলেন, ইসলাম নারীকে অনেক কিছু দিয়েছে। কিন্তু আপনি মুসলিম হিসেবে সেই ইসলামের দেয়া অধিকারগুলো নারীরে কতটুকু দিচ্ছেন ?

কেন বেগম রোকেয়াকে নতুন করে আন্দোলন করতে হল নারী শিক্ষার জন্য ? এই গত শতাব্দীর শেষ ভাগেও এসে নারী শিক্ষার জন্য সচেতনা বৃদ্ধি করতে সরকারকে কেন এত ক্যাম্পেইন করতে হল ? আপ্নারা যারা ইসলামের শিক্ষার কথা বলেন, যারা ইসলাম দিয়ে সমাজ বিনির্মানের কথা বলেন তারা কোথায় ছিলেন যখন নারীদের কে এইসব অধিকারের জন্য আন্দোলনে নামতে হয়েছে ?

এখনও পর্যন্ত নারী ঘরে থাকবে না তার স্বাধীন স্বত্বা নিয়ে নিজেকে বিকশিত করবে সেটা নির্ধারিত হয় আপনাদের কথায়, হুকুমে। এখনো নারী মুখ ঢাকবে না চোখ ঢাকবে এটা নিয়ে আপনাদের বিতর্ক চলতেই আছে। এমনকি নারীর কণ্ঠস্বর নিয়েও আপনাদের বাতিকের শেষ নেই। এখনও নারীকে শুধুমাত্র যৌন সিম্বল হিসেবে চিহ্নিত করেন আপনারা, কেন ?
রাসূলের জীবনকালে নারীরা সামাজিকভাবে যে সাভাবিক পাবলিক এক্সেস পেয়েছে সেটা দিতে পারছেন না কেন আপনারা?

কয়টা মসজিদে মেয়েদের নামাজের ব্যবস্থা করেছেন আপনারা ? পারেননি !

আপনারা দেননা বলেই, আপনারা সঠিক ইসলামী কায়দায় নারীর অধিকার দিতে পারেননা বলেই আজকে যারা যেভাবে পারছে নারীদের বিপথগামী করছে।

আপনারা সমাজ, পৃথিবীকে সময়ানুযায়ী বুঝতে পারেননা বলেই, সঠিকভাবে নারীদের দিকনির্দেশনা দিতে পারেননি বলেই আজ বিশ্বে মুসলিম পরিবারের নারীরা বিভ্রান্ত।

আপনারা শুধু পেরেছেন নারীদের কে ঘরে আটকে রাখারা চেষ্টা করতে। গত শতাব্দীর ভুল যদি এই শতাব্দীতেও না বুঝে উঠতে পারেন, শুধু যুগের উপর দোষ চাপিয়ে কোন লাভ হবেনা।

নারীকে একজন মানুষ হিসেবে ভাবতে শিখুন, রাসূলের জীবনের আদর্শ থেকে সঠিক পথনির্দেশনা নিন। ভুল ব্যাখ্যা, মনগড়া তেলেসমাতিমার্কা ফতোয়া দিয়ে শুধু শুধু ইসলামের ক্ষতি করবেন না, কারন আপনারা যা করেন, মানুষ সেটাকেই ইসলাম মনে করে বসে, যদিওবা সেটা আসল ইসলাম নয়।

ইসলাম দিয়েছে দিয়েছে বলেন ভাল কথা, নিজে সেই ইসলামের দেয়া অধিকারগুলো দেবার চর্চা করুন, তাহলেই আপনি ইসলামের সঠিক প্রতিনিধি হতে পারবেন।

Facebook Comments

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.