জীবন থেকে নেয়া: ১

  • Jibon_Theke_Neya_966354407

মেরী। ঠাকুরগাঁও এর অজ পারাগায়ে জন্ম হয়েছিল মেয়েটির। বন জংগল, সাঁওতাল পারা ঘুরে ঘুরে যেইনা একটু গায়ে গতরে বড় হল, বাবা পরের বাড়ি পাঠিয়ে দিল। বাবার ক্ষমতা সীমিত। পড়ালেখা করাবার সাধ্য দূরে থাক, ঠিকমত সন্তানের খাবার জুটানোই তার জন্য অনেক কঠিন। তাই মেয়েকে একজনের হাতে তুলে দিয়ে দায় মিটাতে চান কোন রকম।

আর এই গড়ীব অসহায় পিতার দায় মুক্তিকে আমরা শহুরে ভদ্দর লোকেরা বলি “”কি নিষ্টুর বাল্য বিবাহ!
যদিওবা ক্ষুধা পেটে নিয়ে পরে থাকা মেরীদের কেউ এক লোকমা খাবার জোগাড়ে এগিয়ে যায়না!

একটা মেয়ে হতে না হতেই, মেরীর বরটা হঠাৎ কোথায় যেন উধাও হল। বছর যায় বরের কোন খোঁজ নেই। মেয়ে আর নিজের পেটের খাবার জোটাতে ক্ষেতে শ্রমিকের কাজ শুরু করতে হল।

মেরীর মেয়ের বয়স এখন নয়। মেয়েকে বাবা মায়ের কাছে রেখে মেরী গৃহকর্মীর কাজ পেয়েছে দূর শহরে। কিন্তু একজন জীবন সংগী পাবার স্বপ্ন তার তরুন মনে পীড়া দেয়। একদিকে মেয়ে, বৃদ্ধ বাবা মা, আর নিজের একাকিত্ব। অর্থাভাবে রোজ শুধু স্বপ্ন ভঙ্গ হয় আশা নিরাশার। পরে থাকে অসহায় দু চোখের অশ্রুকণা।

এরপরও মেরীর জীবনতো থেমে থাকেনা। আমরা যাদেরকে বলি অশিক্ষিত, মুর্খ, সেইসব মেরীদের কিছুটা আশা দেয় কোন এক গ্রাম্য NGO কর্মী। অথবা, গাত্র দাহ করে করে জুটে যায় মুখের গ্রাস। দিন চলে যায়। যুদ্ধে, সংগ্রামে। এ এক অন্য যুদ্ধ!

মূলত মেরীরাই প্রকৃত জীবন যোদ্ধা। বেঁচে থাকার সবটা জুড়েই অসংখ্য যুদ্ধের কুজকাওয়াজ!

Facebook Comments

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.