ভারতের সাথে কেন এই এক পেশে বন্ধুত্ব?

এই একুশ শতকে এসেও এখনও ভারতে জাত পাতমূলক বৈষম্যের শিকার হচ্ছে দলিতরা। যেহেতু মুসলমান ধর্মে জাত পাতের উৎোপাত নেই, তাই অনেক দলিত হিন্দুই বৈষম্য থেকে বাঁচতে মুসলমান ধর্ম গ্রহন করে। এখনও দলিত হিন্দুদের কে অনেকেই অচ্ছুত বিশ্বাস করে। অনেক ডাক্তার দলিত শুনলে চিকিৎসা দিতে চায়না। আর আগেতো দলিতদের চলাফেরার রাস্তাগুলো পর্যন্ত ভিন্ন ছিল উঁচু জাতের হিন্দুদের থেকে।

গত বছর আল জাজিরা  Dalit Muslims of India  শিরোনামে একটা ডকুমেন্টারি করেছে,  সেটা দেখছিলাম। দলিতদের অবস্থা কতটা শোচনীয় দেখতে চাইলে যে কেউ ভিডিওটা দেখতে পারেন।

সমাজের প্রতিটা স্তরে স্তরে বৈষম্যের শিকার দলিত হিন্দুরা। শুধুমাত্র একটা ধারণা, যা মানুষে এত বড় বৈষম্য তৈরি করে, ভাবতেই অবাক লাগে।

কিসের জাত? প্রতিটা মানুষের রক্তেই প্রবাহিত হচ্ছে একি রক্তধারা। ব্যাথা,সুখ, আনন্দের অনুভূতিগুলোও তো একি রকম। তাহলে সমাজে কে দিল তাদের কে এই উচ্চ জাতের অধিকার?  আর কে কোন অধিকারে দলিত শ্রেনী আক্ষা দিয়ে তাদেরকে সমস্ত সামাজিক সুযোগ সুবিধা থেকে করছে বঞ্চিত। যদিও এর পরিবর্তন হচ্ছে ধীরেধীরে। অনেকেই আন্দোলন করছে। সেই আন্দোলনগুলো দমনের জন্য চলছে নিপীড়ন অত্যাচার।

ভারতে দলিতদের থেকেও খারাপ অবস্থা মুসলমানদের।

কয়েকদিন আগে অর্থনীতিবিদ অমর্ত সেন এর একটা গবেষণা রিপোর্ট বেড়িয়েছে কলকাতার মুসলমানদের সামাজিক অবস্থা নিয়ে। রিপোর্ট এ উঠে এসেছে কলকাতার মুসলমানদের চড়ম দুরাবস্থার চিত্র।

অমর্থ সেনের ভাষায়-

“The fact that Muslims in West Bengal are disproportionately poorer and more deprived in terms of living conditions is an empirical recognition that gives this report an inescapable immediacy and practical urgency,”

অখণ্ড ভারতে মুসলমানদের কেও দলিতদের মত অচ্ছুত বলতো তথাকথিত উচ্চ জাতের ব্রাহ্মণ হিন্দুরা। এই রিপোর্ট এ যা অবস্থা উঠে এসেছে মুসলমানদের, যেখানে শিক্ষা, চিকিৎসা, চাকুরী থেকে শুরু করে সমস্ত সামাজিক অর্থনৈতিক সেক্টরগুলোতে মুসলমানদেরকে স্পষ্টভাবে বৈষম্যে রাখা হয়েছে। ভারত ভাগের পর এই এত বছরেও ভারতে মুসলমানদের কোন পরিবর্তন আসেনি।

আমাদের এই বাংলা মানে মুসলমান সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশের অবস্থা অখণ্ড ভারতে কেমন ছিল? সেই সময় বলা হত এই বাংলার মানুষেরা সব অশিক্ষিত কৃষকশ্রেণীর। স্কুল কলেজ তেমন ছিলনা।  ফলে শিক্ষাগত দিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে ছিল এই বাংলা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বিরোধিতা করেছিল খোদ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর মশাই। তারা ততকালীন বৃটিশ শাসকদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা থেকে আটকাবার সব প্রচেষ্টাই করেছিল। কিন্তু সফল হয়নি।

শুধু সামাজিকভাবেই না, ভাষা সাহিত্যেও মুসলমানরা বৈষম্যের শিকার হয়েছে।

কবি কায়কোবাদের ভাষায়,

“”সেকালে হিন্দু লেখকগণ আমাদিগকে বিশেষ ঘৃণার চক্ষে দেখিতেন, তাহারা বলিতেন, ‘মুসলমান বাংলা লিখিতে জানে না’। এসব শুনিয়া আমার মনে বড়ই আঘাত লাগিত, বলিতে কি হিন্দুদের ঐসব শ্লেষ উক্তি আমার হৃদয়ে বিষম বাজিত””

ভারতে আধিপত্যবাদ নীতির কারনে পুরো উপমহাদেশ এর ছোট ছোট রাষ্ট্রগুলো হেজিমনির শিকার। কোন না কোনভাবে ছোট রাষ্ট্রগুলোকে গিলে খাবার একটা প্রচেষ্টা তাদের। ভুটান, নেপাল, বাংলাদেশ কেউই ভারতের সেই ছোবল থেকে মুক্ত নয়। আর বাংলাদেশ ভারতের নানা সীমান্ত নিপীড়ন এর শিকার আরো বেশি।

একদিকে পঞ্চাশ এর বেশি নদীতে বাঁধ দিয়ে বাংলাদেশের বিরাট প্রাকৃতিক বিপর্যয় তৈরি করেছে ভারত। হাজার হাজার নদী মরে গেছে ইতোমধ্যে। অন্যদিকে সীমান্ত হত্যা, রাজনৈতিক মাতব্বরি, অর্থনৈতিক, কালচারাল নিষ্পেষণ।ভারতীয় পণ্য বাংলাদেশের বাজার দখল করে এমন অবস্থা করেছে যে, নিজস্ব উৎপাদিত পন্যের বাজার নষ্ট হয়ে গেছে অনেক ক্ষেত্রেই।

এক সময় বাংলাদেশকে বলা হত সোনালী আশের দেশ। অর্থাৎ পাট রপ্তানিতে অনেক এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। সেই পাটের বাজার দখল করেছে এখন ভারত।বাংলাদেশের গার্মেন্টস সেক্টর নিয়েও চলছে একি রকম চক্রান্ত। এছাড়া ভারতীয় টিভি সিরিয়ালে সয়লাব দেশ। অথচ বাংলাদেশের কোন টিভি চ্যানেল ভারতে চলতে দেয়া হয়না। ঘরে ঘরে এইসব টিভি সিরিয়াল আর হিন্দি সিনেমা দিয়ে বাংলাদেশের মানুষের চিন্তাশক্তিকে পঙ্গু করে ফেলা হচ্ছে। ভারত যে কত বড় কাল সাপ সেটা বাংলাদেশের মানুষ চিন্তাও করতে পারছেনা বেশীরভাগ ক্ষেত্রে।  বাংলাদেশের মানুষের জন্য এই আধিপত্যবাদ মুকাবিলা করা এক কঠিক চ্যালেঞ্জ। কিন্তু সরকার ভারতের সাথে যে এক পেশে বন্ধুত্ব পালন করে যাচ্ছে, এতে সামনে এক অন্ধকারময় সময় অপেক্ষা করছে বলে বোধ হয়।

স্পষ্ট প্রাকৃতিক বিপর্যয় ডেকে এনে সুন্দরবন ধ্বংস করবে জেনেও, রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বন্ধ করতে নারাজ বর্তমান সরকার। অথচ এই প্রকল্প থেকে সুবিধা লুটে নেবে ভারত।বাংলাদেশের জন্য রয়েছে শুধুই বিপর্যয়। গত বছর আমরা এর একতা নমুনা দেখেছিলাম ট্রলার ডূবির ঘটনা থেকে।

কিন্তু কেন ? কেন এই অতি বন্ধুত্ব?

Facebook Comments

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.