সহজ কিছু অনুভূতি – ২

গেল বছর মানবাধিকার দিবসে একটা বিতর্কে অংশ নিয়েছিলাম। ঐ অনুষ্ঠান এ আমার খুব পছন্দের একজন ব্যক্তি প্রধান অতিথি হয়ে এসেছিলেন। বিচারপতি আব্দুর রোউফ উনার দীর্ঘ এক ঘণ্টার বক্তব্যের বেশিরভাগ কথাই ভুলে গেলেও একটা কথা আমি সারাজীবন মনে রাখবো ইনশাআল্লাহ। উনি বলেছিলেন, মানবাধিকার বলতে কিচ্ছু নেই। পৃথিবীতে আছে কেবল দায়িত্ব আর কর্তব্য। কারণ সবাই যদি নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করে, তাহলে পৃথিবীতে যার যা পাবার তারা তা পেয়ে যাবে। একটা সহজ উদাহরণ দিয়ে উনি বলছিলেন, মানুষ যদি প্রকৃতির প্রতি তার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে, তাহলে সে সুস্থ পরিবেশে, দূষনমুক্ত বাতাসে শ্বাস নিতে পারবে।স্যারের এই কথাকে যদি পৃথিবীর যে কোন খানে সেট করি তাহলে দেখবো কতখানি সত্য আর যথার্থতা লুকিয়ে আছে কথাটার মধ্যে।
এই যেমন ধরেন, একজন মা জানে, সে যদি সুস্থ না থাকে, ভালভাবে নিজের যত্ন না নেয়, তাহলে তার সুস্থ সন্তান জন্ম নেবার ঝুঁকি থাকবে, তার মানে এটা একজন মায়ের দায়িত্ব। আমাদের মা বাবা আমাদের জন্য আলহামদুলিল্লাহ সমস্ত দায়িত্ব নিখুঁতভাবে পালন করেন বলেই আমরা সুস্থ স্বাভাবিকভাবে বড় হই।
আবার যদি বলি, আমরা সামাজিক জীব বলেই, শুধুমাত্র নিজেকে নিয়ে চিন্তা করে, নিজের অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নয়ন, মানসিক উন্নয়ন কিংবা চারিত্রিক উন্নয়নের কথা চিন্তা না করে, নিজের উন্নয়নের পাশাপাশি যাতে আমার সাথে জড়িত অন্য মানুষগুলোর কথা মাথায় রেখে চেষ্টা সাধনাকে আমার দায়িত্ব মনে করি, এবং এভাবে যদি সব্বাই দায়িত্ব অনুধাবন করেন তাহলে একটা সমাজ সামগ্রিকভাবে উন্নত হবে। সবাই সবার যা পাবার তা পাবে, মানবাধিকার নিয়ে কারো আর দিবস পালন করতে হবেনা। পৃথিবীতে ধনী দরিদ্রের মাঝে আকাশ সমান ব্যবধান তৈরি হবেনা।
একটা  সংসারের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বাবা মা যেমন নিজের বিলাসিতাকে ত্যাগ করেন, সব ছেলেমেয়েকে সমান অধিকার দেবার দায়িত্বটা একদম হৃদয় থেকে অনুভব করেন বলেই, তারা এতটা উদারভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করতে পারেন। একটা পরিবার থেকে শুরু করে, এই দর্শনটা গোটা বিশ্বের সমস্ত সম্পর্কের ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। আল্লাহ রাব্বুল আলামীন কুরানে হাকিমে ঠিক এই দায়িত্বের কথাটাই খুব সহজ সাবলীলভাবে তুলে ধরেছেন।কিন্তু আমরা সেটার চর্চা করতে আজ ব্যর্থ হচ্ছি, কারণ আমরা মুসলমানরাও আজ আমাদের দায়িত্ব ভুলে, নিজেদের ব্যাংক ব্যাল্যান্স বৃদ্ধি করতে ব্যস্ত। আল্লাহর রসূলের সাহাবীরা যেভাবে নিজেদের সমস্ত কিছু উজাড় করে দিয়েছিলেন মানবতার কল্যাণের জন্য, আমরা তার ধারে কাছেও যেতে পারছিনা। আবার আমরা দাবী করি আমরা রসূলের অনুসারী। তিনি ছিলেন মানুষের সব থেকে কাছের, কিন্তু এখন যারা দাবী করছেন তারা মানুষের প্রতিনিধি, তারা মানুষের কাছ থেকে দূরে সরে যাচ্ছে। এক কথায় সব্বাই  সবার দায়িত্ব থেকে আজ অনেক অনেক দূরে।

নিজেকে নিয়ে সবটুকু ব্যস্ততার এই সময়ে, দায়িত্ব শব্দটা অনুভব করারও তো সময় নেই তাইনা ?

 

লেখা হয়েছে – ৫ মে ২০১৩ 

Facebook Comments

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.